বিয়ের দুই মাস বাকি থাকতেই অনন্তনাগে জঙ্গি হামলায় শহীদ হলেন ২৭ বছরের শ্যামল কুমার দে

বিয়ের দুই মাস বাকি থাকতেই অনন্তনাগে জঙ্গি হামলায়  শহীদ হলেন ২৭ বছরের শ্যামল কুমার দে

জম্মু কাশ্মীরের অনন্তনাগে জঙ্গি হামলায় শহীদ হলেন সিআরপিএফে কর্মরত এক বাঙালি জওয়ান৷ শহিদ হয়েছেন শ্যামল কুমার দে নামে ২৭ বছরের এক জওয়ানের । তিনি পশ্চিম মেদিনীপুরের সবং-এর সিংপুর গ্রামের বাসিন্দা৷

পরিবারের একমাত্র ছেলের মৃত্যুর খবরে পরিবারে নেমে এসেছে শোকের ছায়া৷ শোকে বিহ্বল গোটা সিংপুর গ্রাম৷ জানা গিয়েছে, এ দিন অনন্তনাগের বিজবেহারাতে সিআরপিএফ-এর একটি টহলদারি দলের উপরে হামলা চালায় জঙ্গিদের একটি দল৷

জঙ্গি হামলায় গুরুতর আহত হয় ২৭ বছর বয়সী শ্যামল এবং স্থানীয় একটি বালক৷ পরে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে তাঁদের দু’জনেরই মৃত্যু হয়৷

শহিদ জওয়ানের পরিবার সূত্রে খবর, দু মাস পরেই শ্যামলের বিয়ে ছিল৷ তিনিই ছিলেন বাবা-মায়ের একমাত্র সন্তান৷ বিয়ে উপলক্ষে নতুন বাড়ি তৈরির কাজ চলছিল৷ নির্মাণ সামগ্রী কেনার বিষয়ে কথা বলার জন্য এ দিন বেলা বারোটা নাগাদ শ্যামলকে ফোন করেন তাঁর বাবা৷

কিন্তু দুবার চেষ্টা করেও ছেলেকে ফোনে পাননি তিনি৷ এর কিছুক্ষণের মধ্যেই সিআরপিএফ-এর তরফে ফোন করে নিহত জওয়ানের বাবাকে তাঁর ছেলের মৃত্যু সংবাদ দেওয়া হয়৷

জওয়ানের মৃত্যুর খবর পেয়ে এ দিন তাঁর বাড়িতে যান তৃণমূল সাংসদ মানস ভুঁইয়া এবং সবং-এর বিধায়ক গীতা ভুঁইয়া৷ পাশাপাশি জেলা পুলিশ প্রশাসনের কর্তারাও নিহত জওয়ানের বাড়িতে যান৷

সম্ভবত শনিবারই শহিদ জওয়ানের দেহ তাঁর বাড়িতে নিয়ে আসা হবে৷ মানসবাবু জানান, শহিদ জওয়ানের জন্য গোটা সবংবাসী গর্বিত৷ সরকার এবং দলের তরফে নিহত জওয়ানের পরিবারের পাশে থাকা হবে বলে জানিয়েছেন তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ মানস ভুঁইয়া ।

এই খবরটি মিস করলেন না তো ?