“কলকাতার বিদ্যুৎ পরিষেবার বিভ্রাটের ব্যর্থতার দায় সরকারের নয়”, দাবি ফিরহাদের

“কলকাতার বিদ্যুৎ পরিষেবার বিভ্রাটের ব্যর্থতার দায় সরকারের নয়”, দাবি ফিরহাদের

ঘূর্ণিঝড় আমফান তাণ্ডব চালানোর পর ৪ দিন পেরিয়ে গেলেও এখনও কলকাতার বিভিন্ন এলাকা বিদ্যুৎহীন। আর এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে আজ ফের একবার CESC ঘাড়ে দোষ চাপালেন কলকাতা পুরসভার প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম।
firhad Hakim

তাঁর সাফ দাবি, “কলকাতায় বিদ্যুতের দায় তো সরকারের নয়। এই ব্যর্থতার দায় সরকারের হতে পারে না।”

কলকাতায় বিদ্যুৎ পরিষেবা স্বাভাবিক করার ক্ষেত্রে CESC দাবি করেছে, বহু জায়গায় এখনও গাছ পড়ে রয়েছে। গাছ না কাটার জন্য লাইন দেওয়া যাচ্ছে না।

CESC-র এই দাবিকে এদিন সাফ খারিজ করে দিয়েছেন ফিরহাদ হাকিম। তাঁর স্পষ্ট বক্তব্য, “গাছ না কাটার জন্য লাইন দেওয়া যাচ্ছে না, CESC-র এই দাবি ভুল।” বরং তাঁর পাল্টা অভিযোগ, “বরং কয়েকটি জায়গায় ওদের লাইন চালু থাকায় গাছ কাটা যায়নি।”

হাকিম সাহেব বলেন, “কোথায় কোথায় গাছ কাটতে হবে, CESC-র কাছে সেই তালিকা চাই। শহরের সব বড় রাস্তা এখন গাড়ি চলার উপযুক্ত। ছোট গলিগুলোতে এখন কাজ হচ্ছে। সেনা, NDRF তো সকলের সাহায্যে কাজে এসেছে।”

ফিরহাদ হাকিম জানান, “ওদের দাবি ৫০ শতাংশ জায়গায় আজ ঠিক হয়েছে। বাকি আজ রাতের মধ্যে বেশিরভাগ জায়গায় পরিস্থিতি ঠিক হবে বলে নবান্নকে জানিয়েছে CESC।”

এদিকে এই বিদ্যুৎহীন পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে “দিলীপ ঘোষ ঘোলা জলে মাছ ধরতে নেমেছেন” বলেও মন্তব্য করেন ফিরহাদ হাকিম ।