প্রচেষ্টা প্রকল্প অনলাইন আবেদন শুরু হয়েছে জেনে নিন কিছু তথ্য

প্রচেষ্টা প্রকল্প অনলাইন আবেদন শুরু হয়েছে জেনে নিন কিছু তথ্য

রাজ্য সরকার লক ডাউন এ বিশেষ ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যাওয়া স্ব নিযুক্ত শ্রমিক দের জন্য ১০০০ টাকা অনুদান দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন আগেই।


 

শুরু হয়েছিল অফ লাইন আবেদন। কিন্তু সামাজিক বিধির কথা ভেবে online এ শুরু হয়েছে ।

Website Link : Prachesta

কিভাবে করা এই প্রচেষ্টা প্রকল্পে অনলাইন আবেদন ?

✓ যিনি পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা ।
✓ যিনি পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি ।
✓ MGNREGA (১০০ দিনের কাজ) প্রকল্পের সুবিধা পান না শুধুমাত্র তেমন ব্যাক্তি ই এই প্রকল্পের জন্য আবেদন করতে পারবেন।
✓ পরিবারের মধ্যে শুধুমাত্র একজন ই দরখাস্ত করতে পারবেন । ( পরিবার= স্বামী, স্ত্রী ও অবিবাহিত সন্তানগণ )।
✓ কৃষি কাজে নিযুক্ত কোনো শ্রমিক এই প্রকল্পে আবেদন করতে পারবেন না।

খুব গুরুত্বপুর্ন একটি বিষয় হল যদি আপনি পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কোন প্রকার পেনশন প্রকল্প
যেমন- বার্ধক্যভাতা, বিধবাভাতা, অক্ষমতাভাতা ইত্যাদী এবং সামাজিক সুরক্ষা যোজনা ( SSY ) প্রকল্পের এবং MGNREGA (১০০ দিনের কাজ) প্রকল্পের সুবিধা পেয়ে থাকেন তাহলে এই প্রকল্পে আবেদনের যোগ্য নন ।

কিভাবে অনলাইনে apply করবেন

✓ আবেদনকারীকে শুধুমাত্র অনলাইনে প্রচেষ্টা (Prachesta Prakalpa app) অ্যাপ দ্বারা আবেদন করতে হবে। অফলাইনে কোনো আবেদন পত্র গৃহীত হবে না।
✓ নাম, বাবার নাম, লিঙ্গ, জন্ম তারিখ, বয়স ঠিকভাবে পূরণ করতে হবে ।
✓ ভোটার কার্ডের নং, ডিজিটাল রেশন কার্ডের নং এবং আধার কার্ডের নং দিতে হবে ।
✓ ঠিকানা ঠিকভাবে পূরণ করতে হবে ।
✓ বৈধ মোবাইল নং দিতে হবে ।
✓ ব্যাঙ্কের নাম, ব্রাঞ্চের নাম, Account নং এবং IFSC কোড সতর্কতার সাথে সঠিকভাবে পূরণ করতে হবে ।
✓ দরখাস্তের সাথে
> ভোটার কার্ড
> ডিজিটাল রেশন কার্ড
> আধার কার্ড
> ব্যাঙ্কের ক্যান্সেল চেক বা ব্যাঙ্কের Account বই এর প্রথম পাতা যেখানে নাম, Account নং এবং IFSC কোড ইত্যাদি আছে ।
এই চারটি ডকুমেন্টের জেরক্স কপি দিতে হবে ।
✓ একটি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট শুধু মাত্র একজন আবেদনকারীর জন্যই প্রযোজ্য।

আবেদন পত্র কিভাবে অনুমোদন দেওয়া হবে ?

✓ জেলার ক্ষেত্রে জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শহরাঞ্চলে এস. ডি. ও এবং গ্রামাঞ্চলে বি. ডি. ও , কলকাতা কর্পোরেশনের ক্ষেত্রে কমিশনার যারা দরখাস্ত গ্রহণ করবেন ।
✓ উনারাই পরীক্ষা ও যাচাই করবেন – দরখাস্তকারী বা দরখাস্তকারিনী করোনা মহামারীজনিত কারণে লকডাউনের ফলে প্রকৃতপক্ষে কাজ হারিয়েছেন কিনা ।

✓ ওই শ্রমিকের অন্য কোন আয়ের উৎস যদি না থাকে এবং আর্থিকভাবে চূড়ান্তভাবে পীড়িত কিনা ইত্যাদি ।

✓ উপরের সমস্ত বিষয়গুলি বিবেচনার পর তারা যদি মনে করেন – দরখাস্তকারী বা দরখাস্তকারিনী আর্থিকভাবে চূড়ান্তভাবে পীড়িত তাহলে, তার দরখাস্ত বিবেচিত হবে ।

✓ বিবেচিত দরখাস্তগুলি ইলেকট্রনিক পদ্ধতিতে পেমেন্ট করবার জন্য রাজ্য সরকারের “ প্রচেষ্টা “ প্রকল্পের লিঙ্কে আপলোড করা হবে ।