এক নজরে দেখে নিন কাল থেকে কি কি পরিসেবা চালু হচ্ছে

এক নজরে দেখে নিন কাল থেকে কি কি পরিসেবা চালু হচ্ছে

ঠিক ২৭ দিনের মাথায় সোমবার থেকে কিছুটা শিথিল হতে চলেছে লকডাউন। তবে সীমিত কয়েকটি ক্ষেত্রেই ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে। কয়েকটি কাজে অবশ্য আগামী ৩ মে পর্যন্ত একইরকম বিধিনিষেধ জারি থাকবে।

ইতিমধ্যে নির্দেশিকা জারি করে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক কোন কোন ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হচ্ছে। পরে তা কিছুটা সংশোধনও হয়েছে। তাই শেষ মুহূর্তে একনজরে দেখে নিন সোমবার থেকে দেশে কী কী চালু হচ্ছে –

✓ ব্যক্তিগত গাড়ি : শুধুমাত্র জরুরি ক্ষেত্রে ব্যক্তিগত গাড়িকে ছাড়পত্র দেওয়া হবে। যেমন চিকিৎসকের কাছে যাওয়ার জন্য ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক।
তবে সেক্ষেত্রে নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে চলতে হবে। চার চাকা গাড়ির ক্ষেত্রে সামনে শুধু চালক থাকবেন। পিছনের সিটে দু’জনের বেশি থাকতে পারবেন না।
দু’চাকার গাড়িতে মাত্র একজন যেতে পারবেন।

✓ ট্যাক্সি-অ্যাপ ক্যাব পরিষেবা : আগামী ৩ মে পর্যন্ত ট্যাক্সি, অটোরিক্সা ও ক্যাব পরিষেবা বন্ধ থাকবে।
তবে আপনার বাইক বা স্কুটার সারানোর হলে মেকানিক পাবেন।

✓ অফিস : অফিসে বিভিন্ন শিফটের বন্দোবস্ত করতে হবে। লাঞ্চব্রেকের ক্ষেত্রেও একই নিয়ম মেনে চলতে হবে। অফিসে কাজের সময় ন্যূনতম ১০ ফুটের দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। পাশাপাশি, মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক। বাড়িতে তৈরি মাস্ক ব্যবহার করা যাবে।

তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থার ক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ কর্মী অফিসে কাজ করতে পারবেন। অন্য ক্ষেত্রে ৩৩ শতাংশ কর্মীকে অফিসে ডাকার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও অফিসের লিফটে চারজনের বেশি ওঠা যাবে না। কর্মীদের পিক অ্যান্ড ড্রপের জন্য বড় গাড়ির বন্দোবস্ত করতে হবে। যাতে সামাজিক দূরত্ব বজায় থাকে। পাশাপাশি, অফিসে থার্মাল স্ক্যানার রাখারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

✓ কারা বাড়ি থেকে কাজ (Work from Home) করতে পারবেন?

যে কর্মীদের বয়স ৬৫ বছর বা তার বেশি এবং যাঁদের পাঁচ বছর বা তার ছোটো বাচ্চা আছে, তাঁরা বাড়ি থেকে কাজ করতে পারবেন।

✓ ই-কমার্স : অ্যামাজন, ফ্লিপকার্ট-সহ ই-কমার্স সংস্থাগুলিকে প্রাথমিকভাবে বিভিন্ন ধরনের পণ্য ডেলিভারির অনুমতি দেওয়া হয়েছিল।

তবে রবিবার নির্দেশিকা সংশোধন করে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক জানিয়েছে, শুধুমাত্র অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ডেলিভারি দেওয়া যাবে।

✓ মুদিখানা দোকান : মুদিখানা দোকান খোলা থাকবে। তবে সামাজিক দূরত্বের বিধি চলতে হবে।

✓ নির্মাণ কাজ : সোমবার থেকে নির্মাণ কাজ করার অনুমতি দিয়েছে কেন্দ্র। তবে আবাসন শিল্পের সঙ্গে জড়িত সংস্থাগুলি ভিনরাজ্য থেকে শ্রমিক আনতে পারবে না।

✓ কৃষিকাজ জনিত কাজ : কৃষিকাজের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। খাদ্যজাত দ্রব্যের প্যাকেজিং ও মার্কেটিংয়ে অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তবে যে সংস্থাগুলি এই ব্যবসার সঙ্গে সামাজিক দূরত্বের বিধি মেনে চলতে হবে। ইটভাটাও চালু থাকবে।

✓ পরিষেবা : যাঁরা বাড়ির বিদ্যুতের কাজ করেন, যাঁরা বাড়ির বিভিন্ন সারাইয়ের কাজ করেন, মোটর মেকানিক, ছুতোর, ক্যুরিয়ার পরিষেবার সঙ্গে যাঁরা যুক্ত, তাঁদের লকডাউন থেকে ছাড় দেওয়া হয়েছে। তাঁরা সোমবার থেকে কাজ শুরু করতে পারবেন। কেবল ও ডিটিএইচ কর্মীদের সারাইয়ের কাজ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

✓ পণ্য পরিবহন : সোমবার থেকে সব পণ্য পরিবহনে অনুমতি দিয়েছে কেন্দ্র। ট্রেন ও বিমানেও পণ্য পরিবহন চালু থাকবে।

✓ জরুরি পরিষেবা : ব্যাঙ্ক, এটিএম, ডাকঘর, পেট্রোল ও সিএনজি পাম্প, হাসপাতাল, ল্যাবরেটরি, চিকিৎসা সামগ্রীর দোকান খোলা থাকবে। অ্য়াম্বুলেন্স, চিকিৎসক ও বিজ্ঞানীদের এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্যে যেতে দেওয়া হবে।

তবে হটস্পট বা লাল জোনের অন্তর্গত জেলাগুলিতে এই সুযোগ মিলবে না। সেখানে কড়া লকডাউন জারি থাকবে।