রেড জোনকে ৩ ভাগে ভাগ করে দোকান খোলার পরিকল্পনা আছে, জানালেন মমতা

রেড জোনকে ৩ ভাগে ভাগ করে দোকান খোলার পরিকল্পনা আছে, জানালেন মমতা

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর দিন জেলাশাসক ও পুলিশ সুপারদের সঙ্গে বৈঠকে লকডাউন কার্যত তুলেই দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
Red Zone A B C
বাস-ট্যাক্সি-সহ চালু হল গণপরিবহণ। সঙ্গে জেলায় জেলায় ১০০ দিনের কাজ শুরু করার নির্দেশি পৌঁছেছে নবান্ন থেকে। রেড জোনেও দোকান খোলা যায় কি না তা দেখতে পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে মঙ্গলবার নবান্নে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

এদিন মমতা বলেন, আমরা আগেই শপিং মল ও মার্কেট কমপ্লেক্সের বাইরে দোকানপত্তর খুলে দিতে বলেছি। কনটেনমেন্ট জোনে দোকান খোলা যায় কি না তা পুলিশ দেখবে। পুলিশকে ১৫ তারিখের মধ্যে রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, রেড জোনকে তিন ভাগে ভাগ করবে পুলিশ।

✓ রেড জোন ‘এ’-তে কড়া ভাবে বলবৎ থাকবে লকডাউন।
✓ রেড জোন ‘বি’-তে সোশ্যাল ডিসট্যান্সিংয়ের নিয়ম মেনে দোকান খোলার অনুমতি মিলবে।
✓ রেড জোন ‘সি’ হল কনটেনমেন্ট জোনের বাইরের রেড জোন। সেখানে কিছু কিছু খোলা থাকবে।

তবে নিয়ম না মানলে আইনি ব্যবস্থার মুখে পড়তে হবে।
মুখ্যমন্ত্রী বলেন, সাবধানতা বজায় রেখে ধীরে ধীরে অর্থনীতিকে সচল করার পক্ষে রাজ্য সরকার। সেজন্য স্বল্পমেয়াদি, মধ্য মেয়াদি ও দীর্ঘ মেয়াদি পরিকল্পনা করছে রাজ্য সরকার।

মমতা জানিয়েছেন, গ্রিন জোন জেলায় বাস চলবে। তবে কনটেনমেন্ট জোনে বাস চালানো ঠিক হবে কি না সেজন্য পরামর্শ চেয়েছেন তিনি।